• মঙ্গলবার, জুন ২৮, ২০২২
  • সর্বশেষ আপডেট : ০২:০৮ দুপুর

বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পূর্ণাঙ্গ রায় বাস্তবায়ন: এখনও অনেক পথ বাকি

  • প্রকাশিত ০৪:৩৩ বিকেল আগস্ট ১৫, ২০২১
বঙ্গবন্ধু
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সংগৃহীত

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ১২ আসামির মধ্যে মাত্র ৬ জনের ফাঁসি কার্যকর হয়েছে। একজনের স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। পলাতক ৫ জনের মধ্যে ৩ জন কোথায় আছে তা এখনও জানা যায়নি

আজ ১৫ আগস্ট, জাতীয় শোক দিবস। যথাযথ ভাবগার্ম্ভীযের মধ্যে দিয়ে দেশব্যাপী দিনটি পালিত হচ্ছে। এতদিন পরেও পূর্ণাঙ্গভাবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যা মামলার রায় বাস্তবায়নের অনেক দূর বাকি। 

১৯৭৫ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু এবং তার পরিবারের প্রায় সব সদস্যকে হত্যার দায়ে ১২ বিপথগামী সেনা কর্মকর্তার ফাঁসি কার্যকর করতে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের রায় দেওয়া ১২ বছর পার হয়ে গেছে।

কিন্তু, রায়টি এখনও পুরোপুরি বাস্তবায়িত হয়নি। কারণ দণ্ডপ্রাপ্ত পাঁচজন পলাতক আসামিকে বিচারের মুখোমুখি করা সম্ভব হয়নি। পলাতকদের ফেরত আনার জন্য এখন পর্যন্ত সরকারি প্রচেষ্টা সফল হয়েছে বলেও মনে হচ্ছে না।

এখন পর্যন্ত কেউ জানে না কবে পলাতক খুনিদের ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে। এমনকি পলাতক পাঁচজনের মধ্যে তিনজনের হদিস এখনও জানে না সরকার। 

পলাতক খুনিদের মধ্যে অন্যতম রাশেদ চৌধুরীকে ২০২১ সালের মার্চের আগে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে বলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন গত বছর আশা প্রকাশ করেছিলেন।  তৎকালীন মার্কিন অ্যাটর্নি জেনারেল সেসময় পলাতকদরে আশ্রয়ের মামলাটি পুনরায় চালু করেছিলেন।

এখন যেহেতু যুক্তরাষ্ট্রে নতুন প্রশাসন দায়িত্ব গ্রহণ করেছে, তাই সেই মামলার অবস্থাও বর্তমানে অজানা।

২০০৯ সালের ১৯ নভেম্বর, আপিল বিভাগ বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলায় দোষী সাব্যস্ত ১২ সেনা কর্মকর্তার মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন।

তারপর থেকে এখন পর্যন্ত সৈয়দ ফারুক রহমান, সুলতান শাহরিয়ার রশিদ খান, বজলুল হুদা, একেএম মহিউদ্দিন আহমেদ, মহিউদ্দিন আহমেদ এবং আবদুল মাজেদ - এই ছয় খুনির ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সর্বশেষ ব্যক্তি ছিলেন আবদুল মাজেদ, যিনি কলকাতায় থাকতেন। ২০২০ সালের ৭ এপ্রিল ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার হওয়ার পর ১২ এপ্রিল রাত ১২ টা ১ মিনিটে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে তার ফাঁসি কার্যকর করা হয়।

২০০১ সালে জিম্বাবুয়েতে অবস্থানকারী আরেক আসামি আজিজ পাশার স্বাভাবিক মৃত্যু হয়।

বাকি পলাতকদের মধ্যে রাশেদ চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্রে এবং নূর চৌধুরী কানাডায় রয়েছেন। খন্দকার আবদুর রশিদ, শরিফুল হক ডালিম এবং মোসলেহউদ্দিনের অবস্থান এখনও অজানা।

`সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চলছে ’

এ প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন ঢাকা ট্রিবিউনকে জানান, মামলার পূর্ণাঙ্গ রায় কার্যকর করার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে যা যা সম্ভব তা করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, “পলাতক খুনিদের ফিরিয়ে আনার জন্য আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করছি।”

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, “আমরা জানি না এই মুহূর্তে পাঁচজনের মধ্যে তিনজন কোথায় আছে। এ ব্যাপারে সাংবাদিক এবং  প্রবাসী বাংলাদেশিদের সাহায্য প্রয়োজন।"

তিনি জানান, বিদেশে বাংলাদেশি মিশনগুলোকে এই পলাতকদের হদিস খুঁজতে চেষ্টা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

রাশেদ যুক্তরাষ্ট্রে এবং নূর কানাডায় থাকার বিষয়ে তিনি বলেন, “তাদের প্রত্যাবাসনের ব্যাপারে আমরা ওয়াশিংটন এবং অটোয়া প্রশাসনের সঙ্গে ক্রমাগত যোগাযোগ রাখছি। আমরা যা প্রয়োজন তা সব করছি।”

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দুই জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা এই প্রতিবেদককে জানান, সরকার প্রতিটি সুযোগে রাশেদ ও নূরের প্রত্যাবাসনের বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা সরকারের কাছে উত্থাপন করেছে।

কূটনৈতিক প্রচেষ্টার পাশাপাশি, এই দুজনকে ফিরিয়ে আনতে সরকার আইনি চেষ্টা করছে বলেও জানান ওই কর্মকর্তারা।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডার অভ্যন্তরীণ আইন বাংলাদেশের প্রচেষ্টার জন্য সহায়ক না বলেও জানান ওই দুই কর্মকর্তা।

 উদাহরণস্বরূপ তারা জানান, রাশেদ চৌধুরীর বিষয়টি মার্কিন বিচার বিভাগের এখতিয়ারভুক্ত, যা সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে স্বাধীন বলে মনে করা হয়। এবং কানাডার আইন কোনো মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তকে বিদেশিকে ফেরত পাঠানোর অনুমতি দেয় না।

অন্য তিন পলাতক আসামির অবস্থানের বিষয়ে তারা জানান, এদের সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের কিছু ঘাটতি থাকায় এটি একটি কঠিন কাজ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সর্বোপরি, সরকার এই তিনজনকে খুঁজে বের করতে আন্তর্জাতিক আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এবং বন্ধুত্বপূর্ণ সরকারের বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ করে যাচ্ছে।

 

50
Facebook 50
blogger sharing button blogger
buffer sharing button buffer
diaspora sharing button diaspora
digg sharing button digg
douban sharing button douban
email sharing button email
evernote sharing button evernote
flipboard sharing button flipboard
pocket sharing button getpocket
github sharing button github
gmail sharing button gmail
googlebookmarks sharing button googlebookmarks
hackernews sharing button hackernews
instapaper sharing button instapaper
line sharing button line
linkedin sharing button linkedin
livejournal sharing button livejournal
mailru sharing button mailru
medium sharing button medium
meneame sharing button meneame
messenger sharing button messenger
odnoklassniki sharing button odnoklassniki
pinterest sharing button pinterest
print sharing button print
qzone sharing button qzone
reddit sharing button reddit
refind sharing button refind
renren sharing button renren
skype sharing button skype
snapchat sharing button snapchat
surfingbird sharing button surfingbird
telegram sharing button telegram
tumblr sharing button tumblr
twitter sharing button twitter
vk sharing button vk
wechat sharing button wechat
weibo sharing button weibo
whatsapp sharing button whatsapp
wordpress sharing button wordpress
xing sharing button xing
yahoomail sharing button yahoomail