• রবিবার, আগস্ট ১৪, ২০২২
  • সর্বশেষ আপডেট : ০২:০৮ দুপুর

রাজশাহীতে বিক্রি হয়নি ৭৩ হাজারের বেশি কোরবানি পশু

  • প্রকাশিত ০৬:৫৩ সন্ধ্যা জুলাই ২৮, ২০২১
কোরবানি
ফাইল ছবি মেহেদি হাসান/ঢাকা ট্রিবিউন

জেলাটিতে এবার কোরবানির জন্য ৩,৮২,১১৮টি পশু প্রস্তুত করেছিলেন খামারিরা

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে সরকারি বিধিনিষেধের মধ্যে ঈদ-উল-আযহাকে সামনে রেখে ভারতীয় পশু আমদানি করা হবে না-এমন খবরে আশায় বুক বেঁধেছিলেন রাজশাহীর পশু খামারিরা। তবে এমন আশা শেষ পর্যন্ত পরিণত হয়েছে হতাশায়। রাজশাহীতে কোরবানির জন্য প্রস্তুতকৃত পশুগুলোর মধ্যে ৭৩ হাজারের বেশি পশু অবিক্রিত থেকে গেছে।

জেলাটিতে এবার কোরবানির জন্য ৩,৮২,১১৮টি পশু প্রস্তুত করেছিলেন খামারিরা। তার মধ্যে বিক্রি হয়েছে প্রায় ৩,০৮,৯৮৯টি পশু। ফলে অবিক্রিত থেকে গেছে ৭৩,১২৯টি পশু।

রাজশাহী জেলা প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর এ তথ্য নিশ্চিত করে।

অধিদপ্তরটির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, রাজশাহী নগরীসহ ৯টি উপজেলায় কোরবানির জন্য প্রস্তুতকৃত পশুর মধ্যে ৯,১৬০টি গাভী, ৫৩,৬৯৪টি ষাঁড়, ৩১৫টি মহিষ, ২,২৬,১২৭টি ছাগল এবং ১৯,৬৬৩টি ভেড়া বিক্রি হয়েছে। আর ৪০,৮৪০টি গরু-মহিষ এবং ৩২,২৮৯টি ছাগল-ভেড়া অবিক্রিত রয়ে গেছে।

আরও জানা যায়, অন্যান্য বারের তুলনায় এবার রাজশাহীতে মহিষ কম বিক্রি হয়েছে। প্রস্ততকৃত ২,৯৫৬টি মহিষের মধ্যে মাত্র ৩১৫টি মহিষ বিক্রি হয়েছে।

রাজশাহী পবা উপজেলার খামারি সাদিকুল ইসলাম জানান, তার খামারে এবার ৫টি বড় গরু ছিলো। কোরবানিকে সামনে রেখে এবার তেমন চিন্তা ছিলো না। কেননা, ভারত থেকে গরু আসবে না। আবার লকডাউন থাকলেও পশু পরিবহন আওতামুক্ত ছিলো। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তার ৩টি গরু অবিক্রিত থেকে গেছে।

জেলার দুর্গাপুর উপজেলার আহান অ্যাগ্রো ফার্মের স্বত্বাধিকারী রফিকুল ইসলাম বলেন, "এবার কোরবানিকে সামনে রেখে এক বছরের অধিক সময় ধরে ৩০টি গরু পালন করেছিলাম। স্থানীয় বাজারে তেমন গরু বিক্রি করতে না পেরে ঈদের কয়েক দিন আগে ৩০টি গরু ঢাকায় বিক্রির উদ্দেশে পাঠিয়েছিলাম। কিন্তু ঢাকায় ১৯টি গরু বিক্রি হয়েছে। ১১টি গরু এখন খামারে। অবিক্রিত এই ১১ টি গরুর দাম গড়ে প্রায় ৩ লাখের ওপরে। এখন এই গরুগুলোকে কিভাবে বিক্রি করবো নাকি আবারও এক বছর পালন করবো এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছি।"

রাজশাহী জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ইসমাইল হক জানান, করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে মানুষের আয় কমেছে। আবার বাইরের বড় ব্যবসায়ীরা প্রতি বছর রাজশাহী থেকে যে পশু নিয়ে যায় তাতেও ভাটা পড়েছিলো। এ কারণেই মূলক এই পশুগুলো অবিক্রিত রয়ে গেছে।

তিনি আরও জানান, এবার রাজশাহীর বড় গরু, মহিষ কম বিক্রি হয়েছে। ছাগলের চাহিদা ছিলো সবচেয়ে বেশি। করোনাভাইরাসকালে খামারিরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে ক্ষতি পুষিয়ে নিতে সরকার খামারিদের প্রণোদনা দিচ্ছে, যা সামনের দিনেও অব্যাহত থাকবে।

50
Facebook 50
blogger sharing button blogger
buffer sharing button buffer
diaspora sharing button diaspora
digg sharing button digg
douban sharing button douban
email sharing button email
evernote sharing button evernote
flipboard sharing button flipboard
pocket sharing button getpocket
github sharing button github
gmail sharing button gmail
googlebookmarks sharing button googlebookmarks
hackernews sharing button hackernews
instapaper sharing button instapaper
line sharing button line
linkedin sharing button linkedin
livejournal sharing button livejournal
mailru sharing button mailru
medium sharing button medium
meneame sharing button meneame
messenger sharing button messenger
odnoklassniki sharing button odnoklassniki
pinterest sharing button pinterest
print sharing button print
qzone sharing button qzone
reddit sharing button reddit
refind sharing button refind
renren sharing button renren
skype sharing button skype
snapchat sharing button snapchat
surfingbird sharing button surfingbird
telegram sharing button telegram
tumblr sharing button tumblr
twitter sharing button twitter
vk sharing button vk
wechat sharing button wechat
weibo sharing button weibo
whatsapp sharing button whatsapp
wordpress sharing button wordpress
xing sharing button xing
yahoomail sharing button yahoomail