• বৃহস্পতিবার, জুন ৩০, ২০২২
  • সর্বশেষ আপডেট : ০২:০৮ দুপুর

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী: প্রধানমন্ত্রী খাঁটি মুসলমান, তিনি ঈমানী দায়িত্ব পালন করছেন

  • প্রকাশিত ০৯:৪২ রাত ডিসেম্বর ১৫, ২০২০
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। ফাইল ছবি।ফোকাস বাংলা

‘স্পষ্ট কথা হলো- ভাস্কর্য কেন করা হয়? এটাকে কিন্তু পূজা করা হয় না। এটা মূর্তি নয়। আমরা বলছি হৃদয়ে ধারণ করার জন্য বঙ্গবন্ধুকে ধরে রাখতে চাচ্ছি’

ভাস্কর্য নির্মাণ নিয়ে আলেম-ওলামাদের সাথে আলাপ-আলোচনা চলছে উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন বলেছেন, “আমরা সংবিধানের বাইরে যাব না, কারও ধর্মীয় অনুভূতিতেও আঘাত দেব না।”

তিনি বলেন, “স্পষ্ট কথা হলো- ভাস্কর্য কেন করা হয়? এটাকে কিন্তু পূজা করা হয় না। এটা মূর্তি নয়। আমরা বলছি হৃদয়ে ধারণ করার জন্য বঙ্গবন্ধুকে ধরে রাখতে চাচ্ছি। সবই আলোচনার মাধ্যমে একটা সুন্দর সমাধানে আসব বলে আমরা বিশ্বাস করি। তাদের দেওয়া পাঁচটি প্রস্তাবনা নিয়ে কথাবার্তা চলছে।”

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য স্থাপন নিয়ে সৃষ্ট অস্থিরতা নিরসনে সোমবার রাতে আলেম-ওলামাদের সাথে বৈঠকের বিষয়ে মঙ্গলবার (১৫ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, “আমার বাসভবনে গতকাল রাতে কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের (বেফাক) সভাপতি ও আল হাইয়াতুল উলিয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশের চেয়ারম্যান মাওলানা মাহমুদুল হাসানের নেতৃত্বে দেশের ১২ শীর্ষস্থানীয় আলেম একসঙ্গে বসি এবং মতবিনিময় করি। সেই সভায় মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ, মাওলানা মাহফুজুল হক, ওবায়দুল রহমান নদভী, মাওলানা মো. নুরুল ইসলামসহ ১২ জন আলেম উপস্থিত ছিলেন। ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব ও আমাদের অতিরিক্ত সচিবরাও উপস্থিত ছিলেন।”

তিনি জানান, গত ৫ ডিসেম্বর সারা দেশের শীর্ষস্থানীয় আলেমরা মাহমুদুল হাসানের ডাকে একত্রিত হয়েছিলেন। সেখানে তারা অনেক বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলাপ করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি পত্র তারা প্রেরণ করেছেন। সেই পত্রের কপিও তারা আমাদের দিয়েছেন। সেটার বিষয়ে আলাপ আলোচনার বিষয়েই আমাদের ওখানে গিয়েছিলেন। একটা ফলপ্রসূ আলাপ হয়েছে।

“দীর্ঘ আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে এইটুকু সিদ্ধান্ত হয়েছে যে আমরা আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে ঐক্য যেটুকু হয়েছে, আরও যেসব প্রশ্ন আছে, আমরা ঐক্যমতের মাধ্যমে শেষ করতে পারব। তাদের পাঁচটি প্রস্তাবের সবগুলো নিয়েই আলোচনা হয়েছে। তাদের প্রস্তাব নিয়ে আরও আলাপ হবে। আমরা মনে করি, আলাপের মাধ্যমে আমরা সমস্ত সমস্যা সমাধান করব। আমরা ঐক্যমতে পৌঁছতে পারব,” বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, “তারাও হৃদয় দিয়ে ধারণ করেন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি আমাদের জাতির পিতাকে। তারাও স্বীকার করেন যে আমাদের প্রধানমন্ত্রী একজন খাঁটি মুসলমান, তার ঈমানী দায়িত্ব যেগুলো সেগুলো তিনি পালন করে যাচ্ছেন।”

“পাঁচটি প্রস্তাব তারা আলাপ-আলোচনার মাধ্যমেই শেষ কতে চান। আমরা অনেক দূর এগিয়েছি। আশা করি আলোচনার মাধ্যমেই ফয়সালা করতে পারব,” বলেন মন্ত্রী।

বৈঠকের সিদ্ধান্ত বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “আমরা বলছি কোনোটাই সিদ্ধান্ত হয়নি। এটা নিয়ে আরও আলোচনা হবে। আমাদের প্রধানমন্ত্রী একটা বড় পরিসরে আলাপ করবেন।”

ভাস্কর্য নির্মাণের বিষয়ে সরকার নমনীয় কি না এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, “নমনীয়র কথা আমি বলিনি। আমরা বলেছি আলোচনার মাধ্যমে শেষ করব। সেখানে ভাস্কর্য থাকবে না- এটা আমি কখনও বলিনি। আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে এগুলো শেষ করব। আমি স্পষ্ট করে বলছি, কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি যে ভাস্কর্য ওখানে থাকবে না, অন্য কিছু হবে।”

ভাস্কর্য নির্মাণ কাজ চলমান থাকবে কি না জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, “চলমান তো আছেই। সেগুলো সবই আপনারা দেখছেন।”

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের পরিবর্তে মুজিব মিনার করা নিয়ে আলেমদের প্রস্তাব বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “ওখানে একটি মুজিব মিনার তৈরি করার জন্য (বলেছেন), কুতুব মিনারের আদলে। তারপর তারা বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী নিশ্চয়ই এ বিষয়গুলো খেয়াল রাখবেন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তারা দেখা করতে চেয়েছেন।”

“তারা এ আবেদন রেখেছেন, কেউ যাতে রাস্তায় নেমে এসে ভাঙচুর না করেন। কেউ যেন এসে কোনো ধরনের শান্তি-শৃঙ্খলা ভঙ্গ না করে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি না করেন। এ ব্যাপারে তারা আমাদের সঙ্গে সম্পূর্ণ ঐক্যমতে আসছেন,” বলেন আসাদুজ্জামান।

তিনি বলেন, “ফেসবুকে নানা ধরনের উত্তেজনা ছড়ানোর যে প্রয়াস চলছে সেগুলোর বিরুদ্ধে তারাও কথা বলেছেন। তারা বলেছেন এগুলো নিয়ন্ত্রণ করতে। আমাদের অনেক কিছু নিয়ে আলোচনা হয়েছে।”

যে ইস্যু নিয়ে আলোচনা তা সংবিধান পরিপন্থী হলেও এ বিষয়ে সরকার নতজানু নীতি নিয়েছে কি না- প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, “প্রশ্নই আসে না। সরকার কখনও নতজানু নীতিতে বিশ্বাস করে না।”

মন্ত্রী বলেন, তারা বলেছেন যে কোনো রকমের আন্দোলন তারা করবেন না। পাঁচটি দাবি আলোচনার মাধ্যমে তারা শেষ করতে চান। এগুলো সংবিধানবিরোধী হলে তো তা মানার শক্তি আমাদের নেই। আমরা সংবিধানের বাইরে যাব না। আমরা কারও ধর্মীয় সেন্টিমেন্টেও আঘাত করতে চাই না। আলোচনার মাধ্যমে শেষ করতে চাই।”

50
Facebook 50
blogger sharing button blogger
buffer sharing button buffer
diaspora sharing button diaspora
digg sharing button digg
douban sharing button douban
email sharing button email
evernote sharing button evernote
flipboard sharing button flipboard
pocket sharing button getpocket
github sharing button github
gmail sharing button gmail
googlebookmarks sharing button googlebookmarks
hackernews sharing button hackernews
instapaper sharing button instapaper
line sharing button line
linkedin sharing button linkedin
livejournal sharing button livejournal
mailru sharing button mailru
medium sharing button medium
meneame sharing button meneame
messenger sharing button messenger
odnoklassniki sharing button odnoklassniki
pinterest sharing button pinterest
print sharing button print
qzone sharing button qzone
reddit sharing button reddit
refind sharing button refind
renren sharing button renren
skype sharing button skype
snapchat sharing button snapchat
surfingbird sharing button surfingbird
telegram sharing button telegram
tumblr sharing button tumblr
twitter sharing button twitter
vk sharing button vk
wechat sharing button wechat
weibo sharing button weibo
whatsapp sharing button whatsapp
wordpress sharing button wordpress
xing sharing button xing
yahoomail sharing button yahoomail